কম্বাইড ব্যাংকের ব্যাপক সার্কুলার

২০৪৬ টি পদ – আবেদনের শেষ তারিখ ০৮-০৩-২০২০ পদের নামঃ অফিসার জেনারেল । সার্কুলার টি ব্যাপক – খুব দ্রুত পরীক্ষা হওয়ার সম্ভবনা রয়েছে তাই পড়া শুরু করুন এখন থেকেই … বদলে গেছে পরীক্ষার ধরণ , বদলাতে হবে আপনাকেও । সঠিক সময়ে সঠিক সিদ্ধান্ত নেওয়াটাই হবে বুদ্ধিমানের কাজ এবং তাহলেই আসবে সাফল্য। এখনকার সময় গুলো তে পরীক্ষা হচ্ছে ফ্যাকাল্টি বেইজড, আর আপনি যদি পড়তে থাকেন গতানুগতিক তাহলে যে কোন পরীক্ষার প্রিলিতেই পাশ করা অসম্ভব হয়ে যায় ।

৯ টি কম্বাইড ব্যাংকের সার্কুলার:

৯ টি কম্বাইড ব্যাংকের ব্যাপক সার্কুলার টপ সাজেশন

তাই যে কোন পরীক্ষা দেওয়ার আগে জেনে যাবেন পরীক্ষা কে নিচ্ছে AUST, Arts Faculty অথবা IBA.ওই অনুযায়ী প্রস্তুতি নিন , তাদের বিগত সালের প্রশ্ন গুলো ভালো করে আগে পড়ে নিন তারপর গতানুগতিক পড়তে থাকুন । কিছুদিন আগের বাংলাদেশ ব্যাংকের অফিসার জেনারেল পরীক্ষা সহ অনেক পরীক্ষায় হুবহু অপশন সহ বিগত পরীক্ষায় আসা প্রশ্ন থেকে কমন এসেছে , তাই আগে বিগত সালের ফ্যাকাল্টি বেইজড প্রশ্ন শেষ করুন তারপর গতানুগতিক ধারায় পড়তে থাকুন।

কোন বই – কিভাবে পড়বেন – টপ সাজেশন – বুক লিস্ট

এখনকার সময়ে সাধারণত পরীক্ষা গুলোতে যে ধরনের প্রশ্ন আসেঃ ১. সেকশন A: বাংলা (১৫- ১৮ টি ) প্রশ্ন   2.সেকশন B: ইংরেজি (১৫- ১৬ টি ) প্রশ্ন  ৩.সেকশন C:গণিত (২০ – ২২ টি প্রশ্ন )  ৪.সেকশন D:সাধারণ জ্ঞান (২০-২২ টি ) ও কম্পিউটার (৮- ১০ টি ) প্রশ্ন আসে । প্রথমে সাবজেক্ট গুলোকে ২টি ক্যাটাগরিতে ভাগ করুন

ক্যাটাগরি ১ – 4 সাবজেক্ট (১৫০ মার্ক )

১। বাংলাঃ (৩৫ মার্ক ) বাংলার জন্য জর্জ এর MP3 ভালো করে পড়ুন , সহায়ক হিসেবে অগ্রদূত এর বাংলাটা পড়তে পারেন । এই দুইটা বই পড়লে আর কিছুই লাগবে না। বাংলায় একটা স্ট্রং জোন তৈরি করুন , বাংলা আপনাকে এগিয়ে রাখবে। বাংলা সাহিত্য ভালো করে পড়ুন।

২। ইংরেজিঃ (৩৫ মার্ক ) ইংরেজি গ্রামারের জন্য Competitive Exams অথবা MASTER বা ইংলিশ টিউটর থেকে সিলেবাস দেখে বুঝে বুঝে পড়ুন। ইংলিশ লিটারেচার এর জন্য অরাকল এর মিরাকল থেকে প্রথম থেকে বিস্তারিত এর আগ পর্যন্ত পড়তে পারেন।

৩। গনিতঃ (৩০ মার্ক ) কোয়ান্টীটিভ আপ্টিচিউড , ম্যাথ বাই বুয়েটিয়ান, ফ্যাকাল্টি বেইজড ম্যাথ অথবা খাইরুলস ম্যাথ পড়তে পারেন , মানসিক দক্ষতাঃ জর্জ এর MP3 বা ওরাকল পড়লেই হবে। গণিতটা প্রতিদিন প্যাকটিস করে নিজের আয়ত্তে নিন।

৪। সাধারন জ্ঞানঃ(৫০ মার্ক ) বাংলাদেশ বিষয়াবলি + আন্তর্জাতিক বিষয়াবলি – জর্জ এর MP3,সম্ভব হলে আজকের বিশ্ব বেসিক ক্লিয়ার করার জন্য । রিসেন্ট তথ্যের জন্য ( রিসেন্ট ভিউ বা বেসিক ভিউ বা আলাল’স সাম্প্রতিক আওয়ার ও কারেন্ট অ্যাফেয়ার্স বা প্রথম আলোর “চলতি ঘটনা”) এবং সহায়ক হিসেবে শেষের দিকে প্রফেসরস এর বিশেষ সংখ্যা পড়তে পারেন।

ক্যাটাগরি ২ – 4 সাবজেক্ট (৫০ মার্ক)

৫। কম্পিউটার ও তথ্যপ্রযুক্তিঃ(১৫ মার্ক ) ” Self Suggestion কম্পিউটার ও তথ্যপ্রযুক্তি” বইটি দেখতে পারেন ,৪০ তম বিসিএস এ সর্বোচ্চ কমন পাওয়া বই এটি এবং নিবন্ধন পরীক্ষায় শতভাগ অপশন সহ কমন পড়েছে শুধুমাত্র এই বই থেকে । ফ্যাকাল্টি বেইজড প্রশ্ন দেয়া আছে , স্বল্প সময়ে প্রস্তুতি নেয়া যায়। ১৫ ই ১৫ মার্ক কমন পাওয়া সম্ভব এই বই থেকে কারন গুরুত্বপূর্ন অনুসারে অটো সাজেশন দেয়া আছে আর ৬ টি ফিচার রয়েছে একসাথে ( SSC + HSC এর গুরুত্বপূর্ণ তথ্য, আইসিটি বেসিক ক্লিয়ার, আইসিটি জব সল্যুশন, আইসিটি ডাইজেস্ট, আইসিটি মডেল টেস্ট , এবং আইসিটি অটো সাজেশন )। ৪১ তম বিসিএস দেওয়ার আগে অন্তত এই বইয়ের প্রতি চ্যাপ্টারের শেষের প্রশ্নগুলি দেখে যাবেন যে কইটা ICT থেকে প্রশ্ন আসবে এখান থেকে কমন পাওয়ার সম্ভবনা আছে যা আপনাকে এগিয়ে রাখবে । ফ্যাকাল্টি বেইজড প্রশ্ন AUST,Arts faculty, IBA এর সকল প্রশ্নের সমাধান একমাত্র এই বইতেই আছে ।

৬। বিজ্ঞানঃ (১৫ মার্ক ) ” mp3 বিজ্ঞান ” অথবা সেলফ সাজেশন বিজ্ঞান টা দেখতে পারেন । সময় দিয়ে ভালো করে পড়ুন কারন এখান থেকেও ভালো করা যায়। প্রশ্ন সবসময় গতানুগতিক হবে তা নয় , তাই শুধু বিগত সালের প্রশ্ন গুলোর উপর জোর নয় বেসিক ক্লিয়ার করে পড়ুন।

৭। নৈতিকতা ও সুশাসনঃ(১০ মার্ক ) এসুরেন্স গাইড বা জর্জ এর MP3 বা এর যে কোন দুটি বই পড়বেন। মনে রাখবেন নৈতিকতা ও সুশাসন থেকেও ভালো মার্ক পাওয়া যায় যদি ভালো করে বার বার পড়ে যেতে পারেন, আর নেগেটিভ মার্ক এখানে করবেন না , যেটা জানেন সেটাই উত্তর করার চেস্টা করবেন ।

৮। ভূগোলঃ (১০ মার্ক MP3 ও এসুরেন্স গাইড দুটি বই পড়বেন, সাধারন জ্ঞান এর অনেক টপিকস এখানে কমন পাবেন, ভূগোলের দিকটা গুরুত্ব দিন। এই ৪ টি সাবজেক্ট আপনাকে অন্যদের থেকে পার্থক্য করবে, তাই এগুলো একবার ভালো করে শেষ করতে পারলে আপনি

অন্যদের থেকে একধাপ এগিয়ে থাকবেন, তাই সময় করে এই ৪টি সাবজেক্ট আগে ভালো করে পড়ে নিন , পরে ধারাবাহিক ভাবে দ্রুত রিভিশন দিতে পারবেন।

কিভাবে পড়বেনঃ

প্রথম ৪ টি সাবজেক্টকে প্রতিদিন টপ প্রায়রিটি দিয়ে বাকি ৪ টি সাবজেক্ট প্রতিদিন আপনার সুযোগ , সময় এবং সাধ্যমত একটা প্লান করুন , পড়তে থাকুন । আপনার প্রিপারেশন যদি একিবারেই নতুন হয় তাহলে জবসল্যুশন বা ডাইজেস্ট পড়তে পারেন । বেসিক ক্লিয়ার করে পড়ুন ,জয় আপনারই হবে ইনশা আল্লাহ্‌ ।

বেশি বই পড়ে মনে না রাখার চেয়ে , ভালো মানের বই অল্প করে বার বার বেসিক ক্লিয়ার করে পড়লে মেমোরাইজ জোন তৈরি হবে, মনে থাকবে বেশি। এই বইগুলো পড়লে আপনার বিসিএস ছাড়াও অন্যান্য চাকরির জন্য সহজ হয়ে যাবে,যদি টার্গেট থাকে আপনার ৪১ তম বিসিএস বা সরকারি চাকরি বা সামনে দুদকের পরীক্ষা , বাংলাদেশ ব্যাংকের AD , তাহলে আজকে থেকেই শুরু করুন , সাফল্য আপনার কাছে ধরা দিতে বাধ্য।

সাজেশনটি একান্ত আমার বেক্তিগত , ভালো লাগলে ফলো করতে পারেন। সবার প্রস্তুতি ভালো হউক সেই কামনায় ,”একটি ভালো বই ও পরিশ্রম বদলে দিতে পারে আপনার সম্ভবনার দোয়ার ” তাই এখনি শুরু করুন ভালো লাগলে লেখাটি শেয়ার, কপি , পেস্ট বা অন্য কোথাও পোস্ট করতে পারেন , কোন রেস্ট্রিকশন নাই । ধন্যবাদ ও শুভ কামনা

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here