৪০তম বিসিএস ফরম ফিলাপ কমন জিজ্ঞাসা সমূহ

৩৮ ও ৪০ তম বিসিএস ফরম পূরণ নিয়ে ইনবক্সে জিজ্ঞাসাগুলো থেকে কমন জিজ্ঞাসাগুলোর উত্তর একসাথে শেয়ার করছি। এনালাইসিস এ দেখা যায়, সবাই ই কমন ১০-১৫ টা প্রবলেম ফেইস করেন।
আশা করি, অন্যরাও উপকৃত হবেন-

৪০ তম বিসিএস ফরম ফিলাপ কমন জিজ্ঞাসা সমূহ:

১) ৪০ বিসিএস প্রিলি ফরম পূরণে অমুক অমুক জায়গায় ভুল করেছি। এখন কি করতে পারি?
-এক্ষেত্রে আপনি যদি টাকা জমা দিয়ে না থাকেন, তবে ৭২ ঘন্টা পর আবার নতুন করে ফরম পূরণ করলে নতুন ইউজার আইডি পাবেন। সেটা দিয়ে টাকা জমা দেন। আর অলরেডি টাকা জমা দিয়ে ফেললে, সেটা একমাত্র পিএসসি সংশোধন করতে পারবে। আগারগাও পিএসসি ভবনের নীচ তলায় হেল্প ডেস্ক আছে, সেখানে কথা বলুন এবং সংশোধনের জন্য আবেদন করুন।
২) ৩ বছর মেয়াদী পাস কোর্স করে কি বিসিএস দেয়া যায়?
-বিসিএস এর সার্কুলারে বলা আছে এইচএসসি পাশের পর চার বছর মেয়াদী ডিগ্রি লাগবে। তাই আপনি যদি আবেদন করতে চান তাহলে আপনাকে পাস কোর্স+প্রিলি মাস্টার্স করতে হবে যা চার বছর মেয়াদী ডিগ্রি এর সমতুল্য।
৩) আমি ফাইন্যান্স এ অনার্স করে একাউন্টিং এ মাস্টার্স করলে কি একাউন্টিং এর শিক্ষা ক্যাডারের জন্য আবেদন করতে পারবো?
-পারবেন না। সংশ্লিষ্ট বিষয়ে চার বছর মেয়াদী ডিগ্রি লাগবে, শুধু পাসকোর্স করা থাকলেই কেবল মাস্টার্স এর সাবজেক্ট প্রফেশনাল ক্যাডার হবে। (উত্তরটি শিক্ষা ক্যাডার গ্রুপ থেকে নেয়া)।
৪) আমি যদি শুধু টেকনিক্যাল ক্যাডার ফরম পূরণ করি, তাহলে কি আমি বিসিএস থেকে নন ক্যাডার চাকুরি গুলো পাবো?
-আপনি জেনারেল/বোথ/টেকনিক্যাল যে ক্যাডারেই আবেদন করুন না কেন, নন ক্যাডার চাকুরী পাবেন। যে নন ক্যাডার এ সুপারিশ করা হবে তার নিয়োগকৃত শিক্ষাগত যোগ্যতার সাথে আপনার রিক্যুয়ারমেন্ট মিলতে হবে। যেমন এন বি আর সবাই পাবে, কিন্তু সহকারী শিক্ষক সংশ্লিষ্ট সাবজেক্ট এরা শুধু পাবে।
৫) সবচেয়ে বেশি প্রশ্ন পেয়েছি ক্যাডার চয়েজ নিয়ে এবং অনেকেই ক্যাডার চয়েজ লিস্ট টেক্সট করেছেন। জানতে চেয়েছেন কিভাবে ক্যাডার চয়েজ দিতে হয় এবং টেকনিক্যাল ক্যাডার ৩/৪ এর দিকে দেয়া যায় কিনা?
-আপনি কোন সেক্টরে যেতে চান এবং আপনার পার্সনালিটি,স্কিল,পঠিত বিষয় যে ক্যাডার এর সাথে মিলে তার উপর ভিত্তি করে ইচ্ছা মত ক্যাডার চয়েজ দিতে পারবেন। তবে টেকনিক্যাল বা জেনারেল এর যে ক্যাডার গুলোতে প্রতিযোগিতা কম হয় টা পুর্বে দিয়ে, বেশি প্রতিযোগিতা হয় এমন ক্যাডার পরে দিলে পরের টা পাওয়ার সম্ভাবনা থাকে না। আর টেকনিক্যাল ভালো লাগলে এটা পছন্দক্রমের যেকোন জায়গায় দিতে পারেন। যেমন: শিক্ষা ক্যাডারকে আমার অনেকগুলো জেনারেল ক্যাডার থেকে বেশি ভালো লাগে। এটা পার্সন টু পার্সন ভ্যারি করে। সো আপনার নিজের চাওয়াকে গুরুত্ব দিন।
৬) আমার সিজিপিএ খুব খারাপ। আমি কি শিক্ষা ক্যাডার চয়েজ দিতে পারবো?
– সিজিপিএ ভালো হলে ভাইভাতে বোর্ড তাকে ভালো স্টুডেন্ট হিসেবে ট্রিট করতেই পারে, কিন্তু এটা যে খুব বেশি ইফেক্ট পড়ে টা নয়। আমার পরিচিত অনেকেই কম সিজিপিএ নিয়ে শিক্ষা ক্যাডারে (জেনারেল ক্যাডারগুলোতেও আছেন) জব করছেন। সো এটা তেমন ইফেক্ট পড়ে না, এবং উদ্বিগ্ন হওয়ার কিছু নেই।
৭) আমি BBA complete করছি কিন্তু BCS এর ফরম এর graduation level এ BBA নাই আমি honours দিয়ে ফরম পূরন করছি, এতে কি PSC পরবর্তীতে কোন সমস্যা করবে নাকি others দিয়ে BBA দিতে হবে?
-অনার্স সিলেক্ট করলে আপনার সংশ্লিষ্ট সাবজেক্ট শিক্ষা ক্যাডার হিসেবে আসবে। আদার্স এ গিয়ে বিবিএ সিলেক্ট করলে, শিক্ষা ক্যাডার এর সাবজেক্ট পাবেন না। আর বিবিএ তো একটি ৪ বছর মেয়াদী অনার্স ডিগ্রিই, ভাই।
৮) এস এস সি তে মায়ের নামের বানানে h আছে কিন্তু এস এস সি তে নেই অনার্স এও নেই,,ইভেন আমার মায়ের ন্যাশনাল আই দি তেও নেই…। এখন আমি কী ৩৮ এ এপ্লাই করতে পারব এই অবস্থায়?? নাকি আগে চ্যাঞ্জ করে তারপর এপ্লাই করব?
-পারবেন। প্রিলিতে শুধু তথ্য চাওয়া হয় যা পরে সংশ্লিষ্ট ডকুমেন্ট এর সাথে মিলিয়ে দেখা হবে। রিটেন অথবা ভাইভার আগে ডকুমেন্ট চাওয়া হবে। তার আগেই সকল ভুল ডকুমেন্টগুলো শুদ্ধ করে ফেলতে হবে।
৯) আমার জাতীয় পরিচয়পত্রে বাবা মায়ের নাম একরকম, কিন্তু বাবা/মায়ের জাতীয়পরিচয়পত্রে নাম অন্য রকম। এতে কি সমস্যা হবে?
-এখন শুধু আপনার তথ্য লাগলেও ভাইভার আগে বিপিএসসি-৩ ফরম এ এবং সুপারিশ পাওয়ার পর পুলিশ ভ্যারিফিকেশনে বাবা মায়ের তথ্য এনআইডি লাগবে। তাই দ্রুত সকলের ভুল তথ্য সংশোধন করে ফেলুন।
১০) ক্যাডার চয়েজের ফার্স্ট এ শিক্ষা/কৃষি/স্বাস্থ্য দিয়ে পরে জেনারেল চয়েজ দিলে কি সমস্যা হবে ভাইবা বোর্ড এ?
– সমস্যা হবে না। বোথ ক্যাডারে প্রথমে শিক্ষা/কৃষি/স্বাস্থ্য দিয়ে পরে অন্যগুলো দিবেন, এতে ভাইভা বোর্ড উপরন্তু খুশিই হবেন (৩৫ বিসিএস এর এক ভাই ফরেইন ক্যাডার পাওয়ার মতো হিউজ লিখিত নম্বর পেলেও হেলথ ক্যাডার পেয়েছে ফার্স্ট চয়েজ থাকার কারণেই)। ভাইভা বোর্ডে বলবেন, নিজের সাবজেক্ট এ থাকতে চাই+ রিস্ক কমানোর জন্য এরপর অন্য গুলোও চয়েজ দিয়েছি। এতে আপনি দুর্ভাগ্যবশত আপনার লিখিত সাবজেক্ট এ ফেইল করলেও অন্য ক্যাডার বা নন ক্যাডার পাওয়ার সম্ভবনা থাকবে।
১১) আমি বিবাহিত, কিন্তু ফ্যামিলি জানেনা, আমি কি ফরম পূরণে বিবাহিত নাকি অবিবাহিত লিখবো? ভ্যারিফিকেশনে সমস্যা হবে?
– তথ্য গোপন করলে পুলিস ভ্যারিফিকেশন এ নিগেটিভ রিপোর্ট আসে। তাই রিয়েল তথ্য দেয়াই ভাল। আবেদনে বিবাহিত লিখলে প্রবলেম নাই, ফ্যামিলি তো আপনার ফরম চেক করবেনা। ৪০ এর জব পেতে পেতে ৩ বছর। এর মধ্যে ফ্যামিলি জেনে যাবে, নো প্রব।
অথবা, অবিবাহিত লিখুন। ফরম পূরণের সময় অবিবাহিত, পরে বিয়ে করেছেন, এরকম মনে হবে। ভ্যারিফিকেশন এ আপনার কাবিননামা চেক করা হবেনা, জাস্ট একাডেমিক সার্টিফিকেট চেইক+ এলাকায় মৌখিকভাবে তথ্য জিজ্ঞেস করবে।
১২) আমার হেপাটাইটিস বি/ অমুক প্রবলেম। আমি কি মেডিক্যাল টেস্টে বাদ পরবো?
-বিসিএস এর মেডিক্যাল টেস্ট খুব নরমাল। দৃশ্যত সমস্যা না থাকলে নিগেটিভ রিপোর্ট আসবে না। শুধু চেস্ট আর আই টেস্ট করা হয় সেখানে।

আর বিসিএস এমন একটি প্রক্রিয়া, যেখানে আপনার মেডিক্যাল/ পুলিশ ভ্যারিফিকেশনে নিগেটিভ রিপোর্ট আসলে, যেদিন আপনি সংশোধিত হবেন, সেদিন আপনি চাকুরিতে যোগদান করতে পারবেন। সো, চিন্তার কিছু নেই।
শুভকামনা সকলের জন্য 🙂

রবিউল আলম লুইপা
বিসিএস (সাধারণ শিক্ষা)
ক্যাডার মেধাক্রমে দশম
৩৫ তম বিসিএস

Add a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *